সন্ধ্যা ৬:৫৭, সোমবার, ১০ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কয়েলের আগুনে শেষ পুরো পরিবার

আজকের সারাদেশ প্রতিবেদন:
চট্টগ্রামে মশার কয়েল থেকে লাগা আগুনে একই পরিবারের দগ্ধ চারজনের মধ্যে ৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। তবে ফায়ার সার্ভিসের পক্ষ থেকে শুরুতে সিলিন্ডার বিস্ফোরণের কথা বলা হলেও পরে ঘটনাস্থলে দুটি সিলিন্ডার অক্ষত অবস্থায় পায় ফায়ার সার্ভিস।

রোববার ভোরে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে দগ্ধ অবস্থায় ভর্তির পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাদের মৃত্যু হয়।

নিহত তিনজন হলেন পূর্ব সৈয়দ পাড়ার দেলোয়ার কোম্পানি বাড়ি এলাকার মানিক মিয়ার স্ত্রী নূর নাহার বেগম (৩০) , তার দুই শিশু সন্তান ফারিয়া (৩) এবং মারুফ (১)।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন পাঁচলাইশ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সাদেকুর রহমান।

তিনি বলেন, ‘ভোর পৌনে ছয়টার দিকে দগ্ধ অবস্থায় একই পরিবারের চারজনকে হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। তাদের বার্ণ ইউনিটে ভর্তি দিয়েছিলেন চিকিৎসক। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মা ও দুই শিশুর মৃত্যু হয়েছে। অন্যজন এখনো চিকিৎসাধীন আছেন।’

বায়েজিদ ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা কামরুজ্জামান বলেন, ‘আমরা খবর পেয়ে আমাদের পিক আপ ও অগ্নিনির্বাপনের জন্য পানির গাড়ি নিয়ে গিয়েছিলাম। কিন্তু ঘটনাস্থলের সড়ক সরু হওয়ায় সেখানে পানির গাড়ি ঢুকেনি। তাই নির্বাপনে দেরী হয়েছে৷ ভোর পৌনে ছয়টার দিকে আগুন নির্বাপিত হয়।’

তিনি আরো বলেন, ‘শুরুতে সিলিন্ডার বিস্ফোরণের কথা বলা হলেও আমরা ঘটনাস্থলে দুটো সিলিন্ডার অক্ষত পেয়েছি। মূলত মশার কয়েল থেকে আগুনের সূত্রপাত ঘটেছে।’

তিনি জানান, ওই টিনসেট বাড়ির ৬ টি কক্ষ। সেখানে মানিক স্ত্রী সন্তানদের নিয়ে ঘর জামাই থাকেন। এক কক্ষে মা ও দুই সন্তানসহ ছিলেন। তারা দগ্ধ হয়েছেন। পাশের কক্ষে থাকা ভাইও কিছুটা দগ্ধ হয়েছে।

নিহতের প্রতিবেশী মো. আজিজ চৌধুরী বলেন, ‘আমি চারটার দিকে শোরগোল শুনে ঘুম থেকে জেগে উঠি৷ দেখি একটি সেমি পাকা ঘরে দাউ দাউ করে আগুম জ্বলছে। তখনই কয়েকজনকে উদ্ধার করে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গিয়েছিল। এরপর কী হয়েছে জানিনা।’

তবে তিনি কোনো বিস্ফোরণের শব্দ শুনেননি বলে জানান।


আজকের সারাদেশ/২৮ মে/এএইচ

সর্বশেষ সংবাদ