সকাল ৭:০২, শুক্রবার, ১০ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

এবার এমপি নদভীর বিরুদ্ধে ইউপি সদস্যদের সংবাদ সম্মেলন

আজকের সারাদেশ প্রতিবেদন:

চট্টগ্রামের সাতকানিয়া উপজেলার চারতি ইউনিয়নে এক ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সদস্যের বাড়িতে হামলা ও গুলিবর্ষণের অভিযোগ উঠেছে আরেক ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে। ভুক্তভোগী ইউপি সদস্যের দাবি, স্থানীয় সংসদ সদস্য আবু রেজা নদভীর প্রত্যক্ষ মদতে এই হামলা ও গুলিবর্ষণের ঘটনা ঘটেছে।

বৃহস্পতিবার বিকেলে চট্টগ্রাম নগরীর একটি রেস্টুরেন্টে সংবাদ সম্মেলন করে এসব অভিযোগ করেন চারতি ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য ও ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম। এ সময় একই ইউনিয়নের বিভিন্ন ওয়ার্ডের আরও সাতজন ইউপি সদস্য উপস্থিত ছিলেন।

সম্প্রতি চারতি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রুহুল্লা চৌধুরীকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের জব্দ করা বালু ও এক্সক্যাভেটর চুরির অভিযোগে দায়িত্ব থেকে সাময়িক বরখাস্ত করে প্রজ্ঞাপন জারি করে স্থানীয় সরকার বিভাগ। রুহুল্লা চৌধুরী স্থানীয় সংসদ সদস্য আবু রেজা নদভীর শ্যালক ও জামায়াত নেতা মুমিনুর রহমানের ছেলে। গত ইউপি নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়নে নির্বাচনে অংশ নিয়ে বিজয়ী হয়েছিলেন তিনি।

ইউপি সদস্য মোহাম্মদ সাইফুল ইসলামের অভিযোগ, চেয়ারম্যান সাময়িক বরখাস্ত হওয়ায় তার অবর্তমানে ইউনিয়ন পরিষদের কার্যক্রম চালিয়ে নিতে নিজেকে ১ নম্বর প্যানেল চেয়ারম্যান দাবি করে সাংসদ নদভীর সুপারিশে দায়িত্ব পালনের ঘোষণা দেন। এ বিষয়ে বাধা দিলে অন্য ইউপি সদস্যদের মামলায় জড়িয়ে জেলে পাঠানো ও প্রাণনাশের হুমকি দেন। একই বিষয়ে সাংসদ নদভীর ভাতিজা আ ন ম সেলিমও এমপির ‘আদেশ’ জানিয়ে অন্যান্য ইউপি সদস্যদের একই হুমকি দেন।

লিখিত বক্তব্যে সাইফুল বলেন, ‘নীতিবহির্ভূত এমন কার্যক্রমের প্রতিবাদ জানাই আমরা। আমাদের (আট ইউপি সদস্য) যৌথ সইয়ে ইউএনও এবং জেলা প্রশাসক বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়েছি। এতে অভিযুক্ত নুরুল ক্ষিপ্ত হয়ে নদভীর নির্দেশে আমাদের হুমকি দিতে ও হয়রানি করতে শুরু করেন।’

‘এর ধারাবাহিকতায় ১৯ জুলাই রাত ৩টায় দক্ষিণ চারতি এলাকায় আমার বাড়িতে নুরুল আমিনের নেতৃত্বে হামলা করে সন্ত্রাসীরা। তারা বাড়িতে ভাঙচুর ও আমাকেসহ পরিবারের সদস্যদের হত্যার চেষ্টা করে। প্রতিবেশীরা এগিয়ে এলে সন্ত্রাসীরা গুলি করতে করতে পালিয়ে যায়। এই ঘটনার পর আমরা আট ইউপি সদস্য সবাই চরম নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছি। কখন কার ওপর হামলা হয় কেউ জানে না,’- বলেন সাইফুল ইসলাম।

৮ নম্বর ওয়ার্ডের এই ইউপি সদস্য আরও বলেন, আমাদের ইউনিয়নের সংরক্ষিত মহিলা ওয়ার্ডের নারী সদস্য আকতার বেগমের ছেলে নদভী পরিচালিত আন্তর্জাতিক ইসলামিক বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত ছিলেন। কিন্তু আক্তার বেগম এমপির পক্ষ না নেয়ায় তার ছেলেকে চাকরিচ্যুত করেছেন।

প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে ইউপি সদস্য সাইফুল বলেন, আপনি মানবতার মা। আপনি ছাড়া অসহায় এই মানুষদের আর কোনো আশ্রয় নেই। প্রিয় নেত্রী, আপনি দেখুন হাইব্রিড এমপির নির্যাতনে কীভাবে আমরা জীবনযাপন করছি। আমি এবং আমার পরিবার আওয়ামী লীগের সক্রিয় কর্মী। আপনার ডাকে আমরা সারাজীবন রাজপথে আন্দোলন-সংগ্রাম করেছি। আপনার কর্মীকে আজ জামায়াত থেকে আসা এমপি ও তার পেটোয়া বাহিনী নির্যাতন করে এলাকাছাড়া করার পরিকল্পনা করছে। আমরা আপনার কাছ থেকে সুবিচার চাই।

এর আগে গত মে মাসে সাংসদ নদভীর ছত্রছায়ায় সাতকানিয়ায় কামাল উদ্দিন নামের এক ক্যানসার আক্রান্ত প্রবাসীর ইটভাটা দখলের অভিযোগে ওঠে সাবেক এক ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে।

২৭ মে চট্টগ্রাম নগরের একটি রেস্টুরেন্টে সংবাদ সম্মেলন করে ভুক্তভোগী কামালউদ্দিনের স্ত্রী মোর্তজা বেগম এ অভিযোগ করেন। সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম মানিকের নেতৃত্বে শাহ মজিদিয়া ব্রিকস (এসএমবি) নামের ওই ইটভাটায় লুটপাট ও ভাঙচুরও হয়। স্থানীয় সংসদ সদস্য আবু রেজা নদভী সরাসরি ওই কর্মকাণ্ডে সহযোগিতা করছেন বলে দাবি করেন তিনি।

আজকের সারাদেশ/২১জুলাই/এএইচ

সর্বশেষ সংবাদ

৫ কোটি টাকার পার্ক কাজে লেগেছে মাত্র ১ দিন, ১২ কোটি টাকায় ফের সংস্কার

বেনজিরের ‘বেনজির’ সম্পত্তি জব্দের নির্দেশ

উপাচার্যের অপসারণের দাবিতে অনড় কুবি শিক্ষক সমিতি

এমপি আজীম হত্যাকাণ্ডে আমাকে ফাঁসানো হচ্ছে: শাহীন

প্রথমবারের মতো আন্ডারপাস নির্মাণের উদ্যোগ নিল চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন

কোরবানির বাজার: খাতুনগঞ্জে দেশি পেঁয়াজের রাজত্ব

চট্টগ্রামে বুদ্ধ পূর্ণিমায় মানুষের মুক্তি কামনায় প্রার্থনা

চট্টগ্রাম বোর্ড: সচিবকে আটকাতে কর্মচারীদের ব্যবহার চেয়ারম্যানের!

ফেসবুক খুঁজে দিল ৩০ বছর আগে হারিয়ে ফেলা তিন বান্ধবীকে

ভারতে চিকিৎসা নিতে গিয়ে খুন হলেন বাংলাদেশের এমপি আনোয়ারুল আজিম