রাত ১২:৩২, বৃহস্পতিবার, ৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আকাশে কড়া রোদ, তবু সড়কে পানি থই থই

আজকের সারাদেশ প্রতিবেদন:

মাথার ওপর কড়া রোদ। বৃষ্টি দূরে থাক আকাশে মেঘের ঘনঘটাও নেই। এমন রৌদ্রজ্জ্বল আবহাওয়ার মধ্যেই কিনা সড়কের ওপর ঝমে আছে গোড়ালি থেকে হাঁটসমান পানি। কালছে সেই পানি থেকে বের হওয়া দুর্গন্ধে সড়কের পাশ দিয়ে হেঁটে যাওয়াও দায়। সেখানে বাধ্য হয়ে এই পানি মাড়িয়েই চলাচল করতে হচ্ছে পথচারীদের।

দুদিন ধরে চট্টগ্রাম নগরীর ব্যস্ততম এলাকা জিইসি মোড়ের দুই পাশের আধা কিলোমিটার সড়কে এই ভোগান্তি নিয়ে জনসাধারণকে চলতে হচ্ছে। দুর্ভোগ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমেও বেশ সমালোচনা হচ্ছে।

বন্দরনগরীর উঁচু এলাকাগুলোর একটি জিইসি মোড়। সে কারণে একটা সময় এখানে পানি জমতো না। ভারী বৃষ্টি হলেও দ্রুতই পানি নেমে যেত। কিন্তু কয়েকবছর ধরে সেই পরিস্থিতির বদল হয়েছে। হালকা বৃষ্টিতেই এখন সেখানে জমে যায় পানি। আর এখন তো বৃষ্টি না হওয়ার পরও পানি জমে যাচ্ছে।

স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, মূলত নালা জ্যাম হয়ে যাওয়ায় পানি প্রবাহ বন্ধ হয়ে আছে। সে কারণে পানি নালা উপড়ে বাইরে বেরিয়ে আসছে। শনিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০টা থেকে বিকেল চারটা পর্যন্ত পেনিনসুলা হোটেল থেকে বাটা গলি পর্যন্ত সড়কের দুই পাশে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়। সকালের দিকে হাঁটু পানি থাকলেও অবশ্য দুপুরের পর কমতে শুরু করে। বিকেল চারটার দিকে গোড়ালিসমান পানি দেখা গেছে।

সরেজমিনে দেখা যায়, ফুটপাত দখল থাকায় মানুষদের অনেককে সেই ময়লা পানি মাড়িয়েই চলাচল করতে হচ্ছে। সকালের দিকে পেনিনসুলা হোটেলের পাশে হাঁটু পানি উঠে দোকান-অফিস পর্যযন্ত ছুঁইছুঁই হয়ে যায়। সে কারণে ব্যবসায়ীরাও বিপাকে পড়েন।

টানা দুদিন ধরে পানি উঠলেও সমাধানে উদ্যোগ না নেওয়ায় সিটি করপোরেশনের সমালোচনা করছেন মানুষ। তাঁদেরই একজন সাইফুল আলম। তিনি ফেসবুকে পানির ছবি দিয়ে লেখেন, বৃষ্টি নেই তবুও দুদিন ধরে চট্টগ্রাম নগরীর প্রাণকেন্দ্র জিইসি মোড়ের সড়কে তীব্র দুর্গন্ধযুক্ত পানি উঠে গেছে। কোথা থেকে এই নোংরা পানি আসছে, দেখার কি কেউ নেই।’

যিকরু হাবিবীল ওয়াহেদ নামের আরেক তরুণ লেখেন, ‘শহরের হর্তাকর্তারা আছেন ফটোবাজিতে। কাজের কাজ কিছুই হচ্ছে না। পুরো শহরটাই ময়লার স্তূপে পরিণত হয়েছে।’

অবশ্য চারপাশে সমালোচনা হওয়ার পর পানি অপসারণে উদ্যোগ নিয়েছে সিটি করপোরেশন।

করপোরেশনের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, কীভাবে পানি উঠল তা তাঁরা খুঁজে বের করেছেন। তবে সেটি করতে তাঁদের বেশ বেগ পেতে হয়েছে। তিন থেকে সাড়ে তিন ঘণ্টার চেষ্টায় সমস্যা চিহ্নিত করার পর সমাধানের উদ্যোগ নেওয়ার কথাও জানিয়েছেন তাঁরা।

সিটি করপোরেশনের উপপ্রধান পরিচ্ছন্নতা কর্মকর্তা মোরশেদুল আলম বলেন, সিডিএ অ্যাভিনিউর জিইসি কনভেনশন সেন্টার থেকে সেন্ট্রাল প্লাজার দিকে সড়কের নিচে একটি নালা আছে। মানুষের ফেলা বর্জ্য সেটির মাঝ বরারব জমে যায়। সেজন্য সেটি খুঁজে বের করতে সময় লাগায় দীর্ঘক্ষণ পানি জমে ছিল। এখন বাধা অপসারণ করে দেওয়া হয়েছে। আশা করছি আর পানি জমবে না।

আজকের সারাদেশ/এইচটি

সর্বশেষ সংবাদ

প্রথমবারের মতো আন্ডারপাস নির্মাণের উদ্যোগ নিল চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন

কোরবানির বাজার: খাতুনগঞ্জে দেশি পেঁয়াজের রাজত্ব

চট্টগ্রামে বুদ্ধ পূর্ণিমায় মানুষের মুক্তি কামনায় প্রার্থনা

চট্টগ্রাম বোর্ড: সচিবকে আটকাতে কর্মচারীদের ব্যবহার চেয়ারম্যানের!

ফেসবুক খুঁজে দিল ৩০ বছর আগে হারিয়ে ফেলা তিন বান্ধবীকে

ভারতে চিকিৎসা নিতে গিয়ে খুন হলেন বাংলাদেশের এমপি আনোয়ারুল আজিম

‘জীবন বাজি রেখে রাজপথে যথেষ্ট ছিলেন ছাত্রলীগ নেতা হাসানুল করিম মানিক’

তিনটি ফুটবল মাঠের সমান বিশ্বের সবচেয়ে বড় সাবমেরিনের মালিক রাশিয়া

এভারকেয়ার হসপিটাল শিশু হৃদরোগ বিভাগের আয়োজনে ফ্রি হেলথ ক্যাম্প

২ লিটারের বেশি পানি না নিতে নোটিশ দিল চবির শেখ হাসিনা হলের প্রভোস্ট