সকাল ৭:৩২, শুক্রবার, ১০ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

লেজ গুঁটিয়ে পালাবার পথও পাবেন না- চবি উপাচার্যকে শিক্ষক সমিতির সভাপতি

আজকের সারাদেশ প্রতিবেদন:

উপাচার্য একদিকে আমাদের সমঝোতার আহ্বান জানাচ্ছেন, অন্যদিকে আমাদের কর্মসূচি ব্যহত করার জন্য ‘গণতন্ত্রের বিজয়’ নামে গান বাজনা করে যাচ্ছেন। আমি আবারও বলতে চাই, মানসম্মান নিয়ে চলে যান, না হয় লেজ গুটিয়ে পালাবার পথও পাবেন না।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) উপাচার্য ও উপ-উপাচার্যের পদত্যাগের দাবিতে চলমান আন্দোলন কর্মসূচির দ্বিতীয় দিন এমন মন্তব্য করেন চবি শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. মোস্তাফিজুর রহমান সিদ্দিকী।

এসময় তিনি আরও বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে শান্তি ফিরিয়ে আনতে উপাচার্য ও উপ-উপাচার্যের পদত্যাগ চায় শিক্ষক সমিতি। তারা পদত্যাগ না করা পর্যন্ত আমাদের আন্দোলন অব্যাহত থাকবে।

সোমবার (১৫ জানুয়ারি) বেলা ১১টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত চবির বঙ্গবন্ধু চত্ত্বরে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেন শিক্ষক সমিতির নেতৃবৃন্দ।

এর আগে প্রশাসনিক অনিয়ম, দুর্নীতি ও স্বেচ্ছাচারিতার প্রতিবাদে চবি শিক্ষক সমিতি ১৪ জানুয়ারি থেকে ১৬ জানুয়ারি পর্যন্ত তিন দিনব্যাপী আন্দোলন কর্মসূচি ঘোষণা করে।

এদিকে প্রথমদিনের ন্যায় আন্দোলনের দ্বিতীয়দিনেও দেখা যায় একই দৃশ্য। একপাশে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ‘গণতন্ত্রের বিজয়’ উদযাপন করছে, অন্যদিকে তার পাশেই উপাচার্যের পদত্যাগের দাবিতে শিক্ষক সমিতি পালন করছে অবস্থান কর্মসূচি।

অবস্থান কর্মসূচিতে চবির যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অধ্যাপক ড. আলী আজগর চৌধুরী বলেন, শিক্ষক সমিতির অবস্থান কর্মসূচি চলাকালে উপাচার্যের মদদে একই স্থানে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। ‘গণতন্ত্রের বিজয় ‘ নাম দিয়ে তারা গান, বাজনা, মঞ্চনাটক করছেন। কর্মচারীদের দর্শকের কাতারে বসিয়ে অনুষ্ঠান করছে প্রশাসন। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের এমন দীনতা কবে থেকে শুরু হয়েছে আমার জানা নেই। যেখানে এমন আনন্দ উদযাপনের অনুমতি নেই, সেখানে তারা আমাদের কর্মসূচি বানচাল করতে পরিকল্পিতভাবে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে।

সংগীত বিভাগের সহকারী অধ্যাপক একেএম কৌশিক আহমেদ বলেন, এটা কি বিশ্ববিদ্যালয়? শিক্ষার্থীদের সামনে রেখে আপনারা শিক্ষকদের অপমান করছেন। একদিকে শিক্ষকদের কর্মসূচি চলছে, অন্যদিকে আপনারা গান-বাজনা করছেন। প্রধানমন্ত্রী যদি জানতে পারেন অনতিবিলম্ব আপনাকে অপসারণ করবেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে আহ্বান জানাবো অতিসত্বর এ উপাচার্য ও উপ-উপাচার্যকে অপসারণ করার ব্যবস্থা করুন।

সিন্ডিকেট সদস্য অধ্যাপক মোহাম্মদ আলী বলেন, শেষ ভালো যার সব ভালো তার। আমরা আশা করি আপনি স্বসম্মানে বিদায় হবেন। না হলে লেজ গুটিয়ে পালানোর রাস্তাও পাবেন না।

চবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. শিরীণ আখতার ও উপ-উপাচার্য অধ্যাপক বেনু কুমার দে’র পদত্যাগের দাবিতে টানা তিনদিনের অবস্থান কর্মসূচির ঘোষণা দেয় শিক্ষক সমিতি। আজ দ্বিতীয়দিন অবস্থান কর্মসূচি পালন করা হয়। ১৬ জানুয়ারি পর্যন্ত চলবে এ আন্দোলন।

আজকের সারাদেশ/এমএইচ

সর্বশেষ সংবাদ

৫ কোটি টাকার পার্ক কাজে লেগেছে মাত্র ১ দিন, ১২ কোটি টাকায় ফের সংস্কার

বেনজিরের ‘বেনজির’ সম্পত্তি জব্দের নির্দেশ

উপাচার্যের অপসারণের দাবিতে অনড় কুবি শিক্ষক সমিতি

এমপি আজীম হত্যাকাণ্ডে আমাকে ফাঁসানো হচ্ছে: শাহীন

প্রথমবারের মতো আন্ডারপাস নির্মাণের উদ্যোগ নিল চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন

কোরবানির বাজার: খাতুনগঞ্জে দেশি পেঁয়াজের রাজত্ব

চট্টগ্রামে বুদ্ধ পূর্ণিমায় মানুষের মুক্তি কামনায় প্রার্থনা

চট্টগ্রাম বোর্ড: সচিবকে আটকাতে কর্মচারীদের ব্যবহার চেয়ারম্যানের!

ফেসবুক খুঁজে দিল ৩০ বছর আগে হারিয়ে ফেলা তিন বান্ধবীকে

ভারতে চিকিৎসা নিতে গিয়ে খুন হলেন বাংলাদেশের এমপি আনোয়ারুল আজিম