সকাল ৭:২৫, রবিবার, ৯ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ইদের পর উপজেলা নির্বাচন

আজকের সারাদেশ প্রতিবেদন:

আসন্ন পবিত্র রমজানের পর উপজেলা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশনার (ইসি) মোহাম্মদ আলমগীর। তার ভাষ্য ফেব্রুয়ারিতে এসএসসি পরীক্ষা ও এর পর রোজা শুরু হওয়ায় রোজার শেষে তফসিল ঘোষণা ও ঈদের পর ভোটগ্রহণ করা হবে। তিনি বলেন, ‘আমরা আশা করছি আগামী এপ্রিলের শেষ সপ্তাহ থেকে মের শেষ সপ্তাহের মধ্যে নির্বাচন সম্পন্ন করতে পারব।’

রাজধানীর আগারগাঁওয়ের নির্বাচন ভবনে মঙ্গলবার দুপুরে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে ইসি এ কথা বলেন।

ইসি আলমগীর বলেন, ‘এ উপজেলা নির্বাচন ব্যালটে হতে পারে, ইভিএম মেশিনেও হতে পারে, আবার এই দুইটার সমন্বয় করেও হতে পারে।’

আওয়ামী লীগ উপজেলা নির্বাচনে দলীয় প্রতীক দেবে না বলেছে- এ বিষয়ে জানতে চাইলে ইসি বলেন, ‘কোনো রাজনৈতিক দল যদি মনে করেন তারা দলীয় প্রতীকে মনোনয়ন দেবেন, সেটা দিতে পারেন। আবার যদি কেউ মনে করেন দলীয় প্রতীকে মনোনয়ন দেবেন না, সেটাও তারা করতে পারেন। এ ব্যাপারে নির্বাচন কমিশনের কোনো বক্তব্য নেই।’

তিনি বলেন, ‘কেউ যদি স্বতন্ত্র মনোনয়নে নির্বাচন করতে চায়, এবং তিনি যদি আগে কখনও চেয়ারম্যান অথবা ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত না হয়ে থাকেন, তাহলে তাকে নিজ এলাকার ২৫০ জন ভোটারের স্বাক্ষর নির্বাচন কমিশনের কাছে জমা দিতে হবে।’

আর কেউ যদি আগে কখনও চেয়ারম্যান অথবা ভাইস চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হয়ে থাকেন তাহলে তাকে আর এই ভোটারের স্বাক্ষর জমা দিতে হবে না বলে জানান ইসি আলমগীর।

কতটি ধাপে উপজেলা নির্বাচন হতে পারে- সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে ইসি বলেন, ‘যেহেতু আমাদের ৪০০ এর ওপরে উপজেলা পরিষদের নির্বাচন করতে হবে, সেখানে আমরা এই নির্বাচন তিন ধাপেও করতে পারি, চার ধাপেও করতে পারি আবার পাঁচ ধাপেও করতে পারি। এটা আমরা পরে সিদ্ধান্ত নেব।’

সংসদে নারীদের সংরক্ষিত আসনের তফসিল কবে হবে- এমন এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘সংরক্ষিত নারী আসনের নির্বাচনের জন্য কোন দল কতটি আসন পাবে এই বিষয়ে আমরা সংসদ সচিবালয়ে চিঠি দিয়েছি।’

নিয়ম অনুযায়ী ৩০০ আসনের থেকে ৫০ জন নারী সংরক্ষিত আসনে নির্বাচিত হয় জানিয়ে ইসি আলমগীর বলেন, ‘অতএব প্রতি ছয় জন সংসদের আসনের বিপরীতে একজন নারী সংরক্ষিত আসন পায়। সেই হিসেবে রাজনৈতিক দলগুলো তার হিসাব অনুযায়ী এ আসন পাবে।’

আজকের সারাদেশ/২৩জানুয়ারী/এএইচ