সকাল ৬:৫৭, সোমবার, ৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

চবির হলে আগুন, প্রভোস্ট বললেন ‘শিক্ষার্থীদের অসচেতনতার কারণেই হয়েছে’

আজকের সারাদেশ প্রতিবেদন:

বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) সোহরাওয়ার্দী হলে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। হলের ১৪৪ নাম্বার কক্ষে এ ঘটনা ঘটে।

মঙ্গলবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। এসময় কক্ষে থাকা বই পত্র, বিছানা ও অন্যান্য আসবাবপত্র পুড়ে প্রায় ১৭ হাজার টাকার ক্ষতি হয়।

হলের শিক্ষার্থীরা জানান, রুমের মাল্টিপ্লাগে আগুন লেগে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়। কিছুক্ষণ পরে পাশের রুমে থাকা কয়েকজন শিক্ষার্থী ও কর্মচারীরা এসে আগুন নেভাতে সক্ষম হন।

জানতে চাইলে ১৪৪ নম্বর কক্ষে থাকা বাংলা বিভাগের শিক্ষার্থী রাব্বিউল হাসান শান্ত বলেন, যখন আগুন লাগে তখন আমি ডিপার্টমেন্টে ছিলাম। ডিপার্টমেন্টে যাওয়ার আগে চেয়ারের ওপর একটি মাল্টিপ্লাগ রেখে গিয়েছিলাম। ওইখান থেকে শর্ট সার্কিট হয়ে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। পরবর্তীতে পাশের রুমের কয়েকজন এসে আগুন নিবারণ করে। আমার বিছানা, ৫ হাজার টাকার বইপত্র ও ১২ হাজার টাকার গিটার পুড়ে যায়।

পাশের কক্ষে থাকা তামজীদ ও নাজমুল হাসান জানান, ১৪৪ নাম্বার রুমের পাশ দিয়ে হেটে যাওয়ার সময় অগুন দেখতে পাই। পরে রুমের তালা ভেঙে আগুন নিবারণ করি। এতে রুমের বিছানা ও নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিস পুড়ে যায়।

অগ্নিকাণ্ডের বিষয়ে জানতে চাইলে সোহরাওয়ার্দী হলের প্রভোস্ট ড. শিপক কৃষ্ণ দেবনাথ বলেন, ওই রুমে থাকা শিক্ষার্থীদের অসচেতনতার কারণেই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। রুম থেকে যাওয়ার আগে মাল্টিপ্লাগের সুইচ বন্ধ না করায় অতিরিক্ত গরম হয়ে আগুন লেগে যায়। খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক হলের কর্মচারীরা গিয়ে আগুন নিবারণ করে এবং ফায়ার সার্ভিসকে কল দেয়।

হাটহাজারী থানা ফায়ার সার্ভিসের সিনিয়র স্টেশন অফিসার আব্দুল মান্নান বলেন, হল কর্তৃপক্ষ আগুনের খবর আমাদেরকে জানায়। খবর পেয়ে আমরা স্পটে যাই। বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকেই আগুনের সূত্রপাত হয়েছিলো।

আজকের সারাদেশ/এমএইচ