সকাল ৭:০৯, রবিবার, ৯ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

৭২ লাখ জরিমানা গুনে চট্টগ্রাম বন্দর ছাড়ল লাইবেরিয়ার জাহাজ

আজকের সারাদেশ প্রতিবেদন

বাংলাদেশের পতাকাবাহী জাহাজ (স্বার্থরক্ষা) আইন লঙ্ঘন করে ওয়েভার সনদ ছাড়া পণ্য পরিবহন করার দায়ে লাইবেরিয়ার জাহাজ ‘এমভি এক্সপ্রেস লোটস’ আটক করে মার্কেন্টাইল মেরিন অফিস (এমএমও)।

আটকের দুই দিন পর ৭২ লাখ টাকা জরিমানা দিয়ে চট্টগ্রাম বন্দর ছেড়েছে লাইবেরিয়ার জাহাজ ওই। এছাড়া বন্দর ছেড়ে গেছে একই মালিকের জাহাজ ‘এমভি নিল ওয়ালা’, ‘এমভি নক্ষী’ ও ‘এমভি ধলাগিরী’।

চট্টগ্রাম বন্দর থেকে ১৪৫০ টিইইউ কনটেইনার রপ্তানি পণ্য নিয়ে ১৫ মে বেলা সাড়ে ৩টায় কলম্বো বন্দরের উদ্দেশে যাত্রা শুরুর কথা ছিল ‘এক্সপ্রেস লোটস’ জাহাজের। কিন্তু আইন লঙ্ঘন করায় বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে জাহাজটি কলম্বো বন্দরের উদ্দেশে চট্টগ্রাম বন্দর ছেড়ে গেছে।

জানা গেছে, বাংলাদেশের পতাকাবাহী জাহাজ (স্বার্থরক্ষা) আইন লঙ্ঘন করে ওয়েভার সনদ ছাড়া পণ্য পরিবহন করার দায়ে জাহাজটিকে ১৫ মে আটক করে মার্কেন্টাইল মেরিন অফিস (এমএমও)। এটিসহ একই মালিকের আরও তিনটি জাহাজের কাছে জরিমানা বাবদ পাওনা ছিল ৭২ লাখ ২৫ হাজার ৭৫০ টাকা। বৃহস্পতিবার জরিমানার এই টাকা পরিশোধের পর এমএমও জাহাজটিকে চট্টগ্রাম বন্দর ত্যাগের অনুমতি দেয়।

প্রায় ৯০টি ফিডার জাহাজ চট্টগ্রাম বন্দর থেকে কলম্বো, সিঙ্গাপুর, পোর্ট কেলাং, তানজুম পেলেপাস বন্দরে চলাচল করে। এর মধ্যে দেশীয় জাহাজ রয়েছে ৮ টি। বাকিগুলো বিদেশি পতাকাবাহী জাহাজ।

জাহাজের শিপিং এজেন্ট সি কনসোর্টিয়াম বাংলাদেশ লিমিটেডের নির্বাহী পরিচালক ক্যাপ্টেন এ এস চৌধুরী বলেন, দুই দিন আটকে থাকার কারণে জাহাজের ভাড়া (চার্টার হায়ার) বাবদ ৪০ হাজার ডলার ক্ষতির মুখে পড়েছি আমরা। ১৯ মে জাহাজটি কলম্বো বন্দরে পৌঁছে রপ্তানি পণ্য ইউরোপ-আমেরিকাগামী মাদার ভেসেলে ওঠানোর কথা ছিল। এখন মাদার ভেসেল মিস করার আশঙ্কা তৈরি হচ্ছে।

মার্কেন্টাইল মেরিন অফিসের প্রিন্সিপাল অফিসার ক্যাপ্টেন সাব্বির মাহমুদ বলেন, অনিয়মের অভিযোগে একাধিকবার সতর্ক করা হয়েছিল জাহাজটির শিপিং এজেন্টকে। বাংলাদেশের পতাকাবাহী (স্বার্থরক্ষা) আইন না মানার করণে এই মালিকের চারটি জাহাজকে ৭৭ লাখ টাকার বেশি জরিমানা করা হয়েছিল।

তিনি আরও বলেন, জরিমানা পরিশোধ না করা এবং অনিয়মের কারণে এবার ‘এক্সপ্রেস লোটস’সহ তিনটি জাহাজ আটক করা হয়। বৃহস্পতিবার জরিমানার ৭২ লাখ ২৫ হাজার ৭৫০ টাকা পরিশোধের পর এমএমও জাহাজগুলো বন্দর ত্যাগের অনুমতি দেয়। একই মালিকের এমভি ধলাগিরী নামক জাহাজটিকে জরিমানা করা হয়েছে। চট্টগ্রাম বন্দরে এলেই তাকে জরিমানা পরিশোধ করতে হবে।